ইয়েমেনে মঙ্গলবার থেকে শুরু যুদ্ধবিরতি

ওয়ার্ল্ড বিডি নিউজ.কম, ঢাকা : জাতিসংঘ ইয়েমেনের হুদাইদা বন্দরে সরকারপন্থী বাহিনী ও হুথি বিদ্রোহীদের মধ্যে যুদ্ধবিরতি প্রক্রিয়া মঙ্গলবার থেকে শুরু কথা ঘোষণা করেছে বলে জানিয়েছেন হুথির এক মুখপাত্র।

কাতারের সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানায়, শুক্রবার থেকে হুদাইদার বিভিন্ন জায়গায় থেমে থেমে সংঘর্ষ হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সুইডেনে দু’পক্ষ যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ার পরও এই সংঘর্ষ ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, হুথি নিয়ন্ত্রিত শহরটিতে বন্দুকের গুলির শব্দ ও ক্ষেপনাস্ত্র হামলার শব্দ পাওয়া গেছে। হুদাইদাকে চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলেছে সৌদি-সংযুক্ত আরব আমিরাত জোট।

হুদাইদা শহরের আটকে থাকা লাখ লাখ মানুষের জীবন ধারণের জন্য জরুরি পণ্য যায় ওই বন্দর দিয়ে।

এক সপ্তাহ আলোচনার পর ইয়েমেনের সৌদি সমর্থিত সরকার লড়াই বন্ধ করে ওই এলাকা থেকে তাদের বাহিনী প্রত্যাহার করতে সমর্থ হয়েছে।

সেখানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘের উদ্যোগে এই প্রথম কোনো গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি ঘটেছে।

চার বছরের বেশি সময় ধরে সেখানে চলমান এই যুদ্ধে অন্তত ৬০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। ইয়েমেনের অসংখ্য মানুষ দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে। জাতিসংঘ এই সঙ্কটকে ‘ভয়াবহতম মানবসৃষ্ট বিপর্যয়’ বলে আখ্যায়িত করেছে।

‘হুথিরা জাতিসংঘের কাছ থেকে একটি মেসেজ পেয়েছে যাতে বলা হয়েছে ডিসেম্বর ১৮ থেকে হুদাইদায় সংঘর্ষরত দলগুলোর মধ্যে যুদ্ধবিরতি শুরু হবে,’ হুথি মুখপাত্র বলেন আলজাজিরাকে।

হুদাইদায় সংঘর্ষ বন্ধের বিষয়ে একমত হলেও, দুই পক্ষ রাজধানী সানা’র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং জাতীয় ব্যাঙ্কের সঙ্গে সম্পর্কিত কয়েকটি বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছে।

২০১৪ সালে হুথি বিদ্রোহীরা মনসুর হাদির সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর ইয়েমেনে যুদ্ধ শুরু হয়। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত মনসুর হাদির সরকারের সমর্থনে সৌদি জোট ইয়েমেনে হস্তক্ষেপ শুরু করে ২০১৫ সালে।

এরপর থেকে ইয়েমেনে খাদ্য সঙ্কট তীব্রতর হতে থাকে এবং বর্তমানে দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছেছে দেশটির মানুষ।