শার্শা, মণিরামপুর ও অভয়নগর বিএনপি জামায়াতের ৯৮ নেতাকর্মীর আত্মসমর্পণ

যশোর : যশোরে নাশকতা মামলায় শার্শা, বেনাপোল, মণিরামপুর ও অভয়নগর উপজেলার বিএনপি-জামায়াতের ৯৮ নেতাকর্মী আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। বুধবার তারা পৃথক মামলায় স্ব-স্ব আদালতে আত্মসমর্পনের পর জামিন আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে বিএনপির সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বর, ছাত্রদল, যুবদলের নেতাকর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকে উচ্চ আদালতের জামিন নিয়ে বাইরে ছিলেন। আবার কেউ কেউ পলাতক থেকে এ দিন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।
আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হচ্ছেন, বেনাপোলের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে আমিরুল ইসলাম, মারফত আলীর ছেলে ইমদাদুল হক ইমদা, হাফিজুর রহমান, ভবেরবেড় গ্রামের মৃত কুতুব আলীর ছেলে মোহাম্মদ মির্জা, আব্দুল মান্নানের ছেলে জনি, রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আব্দুল খালেক মেম্বারের ছেলে আসাদুজ্জামান আসাদ, শার্শার আনোয়ার হোসেন বাবু, ইসমাইল হোসেন শান্তি, ওয়াছি উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন, এমএ মান্নান দুদু, সুমন হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন, মেহেদি হাসান জনি, আজগর উদ্দিন তাজ, আব্দুল হাই বিশ্বাস, জামাল উদ্দিন, মোকলেছুর রহমান, কাউছার আলী, লিয়াকত আলী, গফফার আলী, রওশন আলী, আব্দুর রাজ্জাক, আক্তারুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, আইজুদ্দিন বিশ্বাস, রাজিব হোসেন, শরিফ উদ্দিন ওরফে সোহাগ, নাসির উদ্দিন, মোহাম্মদ টিটো, অদুদ হোসেন, মোহাম্মদ নান্নু, হাফিজুর রহমান, আব্দুল হাই, মোহাম্মদ ইসরাফিল, ইসরাইল হোসেন, আব্দুল কুদ্দুস, অভয়নগর উপজেলার ইমান আলী, আব্দুল মজিদ, হাবিবুর রহমান হাবিব, নজরুল ইসলাম, রুহুল আমিন, ফেরদৌস হোসেন মোল্যা, আব্দুস সাত্তার, হাসিব হোসেন, মণিরামপুর উপজেলার আলীম উদ্দিন, আয়ুব আলী, আব্দুল কাদের, জালাল উদ্দিন, সোহাগ হোসেন, আসাদুজ্জামান, শাহিন হোসেন, আসাদুজ্জামান, মতিয়ার রহমান, নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।
নাশকতার পরিকল্পনা ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে তাদের বিরুদ্ধে চারটি থানার পুলিশ বাদী হয়ে এসব মামলা দায়ের করেছিল।