যশোর শহরে প্রকাশ্যে এক স্কুল পড়–য়া শিক্ষার্থী অপহরণের অভিযোগে মামলা

যশোর : প্রকাশ্যে এক স্কুল পড়–য়া শিক্ষার্থীকে অপহরণের অভিযোগে কোতয়ালি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় আসামী করা হয়েছে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার বাহাদুরপুর কাজীপাড়া মল্লিক বাড়ীর বর্তমানে যশোর শহরের বারান্দী মোল্যাপাড়া আমতলা হাসান মহুরীর বাড়ির ভাড়াটিয়া রঞ্জিত মল্লিকের ছেলে সুজন ওরফে শাকিল।
যশোরের মণিরামপুর উপজেলার নেহালপুর গ্রামের বর্তমানে শহরের পুরাতন কসবা কাজীপাড়া আজিজ সিটির ভাড়াটিয়া খবির উদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে জিয়াউর রহমান বাদি হয়ে শুক্রবার কোতয়ালি মডেল থানায় সুজন ওরফে শাকিলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। তিনি মামলায় উল্লেখ করেন, তার মেয়ে সানাজিদা ইয়াসমিন চুমকি যশোর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ে ৯ম শ্রেনীতে লেখাপড়া করে। স্কুলে আসা যাওয়ার প্রাক্কালে আসামী সুজন ওরফে শাকিল তাকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্তসহ প্রলোভন দিয়ে ফুসলাতো। গত ৪ এপ্রিল সকাল পৌনে ৮ টায় চুমকি ভাড়া বাড়ির আঙ্গিনায় সবজির ক্ষেতে পানি দিতে । বাড়ির দক্ষিণ পার্শ্বে ক্ষেতে যাওয়ার পর উক্ত আসামী একটি মোটর সাইকেল যোগে চুমকিকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। চুমকির গলায় স্বর্ণের চেইন ও কানে দুল ছিল বলে তার পিতা এজাহারে উল্লেখ করেন। পরে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ খবর নিয়ে নিশ্চিত হন সুজন ওরফে শাকিল অপহরণ করে নিয়ে গেছে। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চুমকিকে পুলিশ উদ্ধার করতে পারেনি।