ত্রাণ কমিটিতে নাম না রাখার আ.লীগ নেতাকর্মীর উপর হামলা : আহত ৪

jessore map

ঝিকরগাছা : যশোরের ঝিকরগাছার নায়ড়া গ্রামে ত্রাণ কমিটিতে নাম না রাখার সন্দেহে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীর উপর হামলা করা হয়েছে। এতে ৪ জন আহত হয়েছে। আহতদের ঝিকরগাছা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রত্যেক ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ত্রাণ পরিচালনা কমিটি গঠন করা হচ্ছে। সেই কমিটিতে শংকরপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড নায়ড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ইজানুর রহমানের নাম রাখা হবে না। এমন সন্দেহ করে ইজানুর রহমানের নেতৃতত্বে তার ভাই শংকরপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফয়জুর রহমান, তার ভাইপো তুহিন কবীর, শাহিন কবীর, বাদশা ও সম্্রাট এবং আয়ুব আলী ছেলে নয়ন দেশীয় অস্ত্র দা, শাপল, রড় নিয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাকন হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা হবিবর রহমান ও তার ছেলে নয়ন রেজা ও তবিবর রহমানের উপর হামলা করে। এ সময় আলফাজুর রহমান নামে এক ব্যক্তি ঠেকাতে এগিয়ে আসলে তাকেও মারপিট করা হয়। হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় নয়ন রেজা (৩২), হবিবর রহমান (৫২), তবিবর রহমান (৩৮) ও আলফাজুর রহমান (৪২) কে ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্্েরক্সে ভর্তি করা হয়েছে। যশোর ২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. নাসিরউদ্দীন ও উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম আহতদের দেখতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান।
এ ব্যাপারে আহত হবিবর রহমান জানান, সম্প্রতি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সরকারি ত্রাণ বিতরণের সময় সাবেক মেম্বর ইজানুর রহমান এক বস্তা চাল চুরি করে। প্রমাণসহ ধরা পড়ার পর বিভিন্ন মিডিয়া খবর প্রকাশ হয়। এতে করে আমাদের দলীয় সম্মান ক্ষুন্ন হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা এ ধরণের চার চোর ও ধান্দাবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী দিয়েছেন। যে সমস্ত চাল চোর চেয়ারম্যান, মেম্বর ধরা পড়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ জনপ্রতিনিধি ও দলীয় পদ থেকে বহিস্কার করেছেন। এ জন্য আমরাও কোন চাল চোরকে ত্রাণ কমিটিতে স্থান দেব না, এই ভেবে ইজানুর রহমান ও তার ভাই বিএনপির নেতা ফয়জুর রহমান আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে।
৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাকন হোসেন জানান, আমি থানার অফিসার ইনচার্জকে ফোন দিয়েছিলাম। তিনি একটি ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে থাকার কারণে মামলা করতে পারেনি। তবে রাতের মধ্যে মামলা করা হবে।
আহত আলফাজুর রহমান জানান, সাবেক মেম্বর ইজানুর রহমান আওয়ামী লীগ করে, আবার তার ভাই ফয়জুর রহমান শংকরপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। তারা সব সময় ক্ষমতায় থাকতে চায়। এমন দুইদিকে খেলা পরিবারকে দল থেকে বহিস্কার করা উচিত।