নওয়াপাড়ায় অমুক্তিযোদ্ধাকে মুক্তিযোদ্ধা বানানোর পায়তারা

যশোর : যশোরের নোয়াপাড়ায় অমুক্তিযুদ্ধাকে মুক্তিযুদ্ধা বানানোর পায়তারায় লিপ্ত হয়েছে একটি কুচক্রি মহল। নওয়াপাড়া পৌরসভার আট নং ওয়ার্ডের পীর মোহাম্মদ মোল্যাকে নিয়ে এই অপকর্মে লিপ্ত হয়েছে ওই মহলটি। এতে করে এলাকার মানুষের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় মানুষ ওই কুচক্রি মহলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ শাস্তির আওতায় দাবি জানিয়েছে।
এলাকাবাসীরা জানান, আসন্ন পৌর সভা নির্বাচনকে সামনে রেখে আট নং ওয়ার্ডে পীর মোহাম্মদ মোল্যাকে সামনে রেখে মাঠে নেমেছে মো. আয়াতুল্লাহ বিশ্বাস। তিনি ওই ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় প্যানা মেরেছেন। প্যানায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজিব ওয়াজেদ জয় এবং পীর মোহাম্মদ মোল্যার ছবি ব্যবহার করে নির্বাচনী দোয়া চেয়েছেন। পীর মোহাম্মদ মোল্যাকে বীর মুক্তিযোদ্ধা খেতাব দিয়েছেন। এতে করে এলাকার মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় মানুষের বক্তব্য পীর মোহাম্মদ মোল্যা কখনো মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না। তাকে কে মুক্তিযোদ্ধা খেতাব দিয়ে অপকর্ম করা হচ্ছে। নিজের স্বার্থ সিদ্ধি হাসিল করা হচ্ছে। আর এভাবে মুক্তিযোদ্ধাদেরকে বিতর্ক করা হচ্ছে। দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা তাদেরকে নিয়ে যে কেউ যখন তখন ছিনিমিনি খেলবে আমরা কেউ তা মেনে নেব না। যারা মুক্তিযোদ্ধা নিয়ে বিতর্ক তৈরি করার চেষ্টা করছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে। তা না হলে দেশে ঘরে ঘরে অমুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযুদ্ধা বনে যাবে।
স্থানীয়রা জানান, পীর মোহাম্মদ মোল্যা একজন বৃদ্ধ মানুষ। তিনি খুব একটা চলাফেরা করতে পারেন না। তিনি ভালো করে কথাও বলতে পারে না। তিনি কখন মুক্তিযোদ্ধা করেছেন তার দালিলিক কোন প্রমাণ নেই।
এ ব্যাপারে কাউন্সলির প্রার্থী আয়াতুল্লাহর মোবাইল ফোনে কয়েকবার ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।