উত্তেজনা বাড়িয়ে এবার কিমের বোনের বিরুদ্ধে দক্ষিণ কোরিয়ায় মামলা

ঢাকা : সীমান্তে লিয়াঁজো অফিস গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর থেকে সম্পর্কের আরও অবনতি হয়েছে দুই কোরিয়ার মধ্যে। আর এ জন্য উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং-উনের বোনকে এর জন্য দায়ী করে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার এক আইনজীবী।

জানা গেছে, দক্ষিণ কোরিয়ার সংশ্লিষ্ট দফতর শুক্রবার এ মামলার ভার নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে কিম জং-উনের বোন কিম ইয়ো জংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগের আনুষ্ঠানিক তদন্ত তারা শরু করবেন কিনা তা এখনও পরিষ্কার হয়নি। তাছাড়া, কিম জং উনের বোনকে মামলার জন্য আদালতে ডেকে পাঠানোর কোনও উপায়ও দক্ষিণ কোরিয়ার কৌসুলিদের নেই। সে দিক থেকে কার্যত তাদের হাত বাঁধা। ফলে মামলাটি মূলত প্রতীকী।
এদিকে, উত্তেজনা বাড়িয়ে এ মামলার জেরে উত্তর কোরিয়া ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানালে দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্কের আরও অবনতি ঘটতে পারে। দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থানকারী উত্তর কোরিয়ার পক্ষত্যাগীদের বেলুনে করে উত্তরে প্রায়ই বৈরি বার্তা পাঠানো নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে দুই কোরিয়ার মধ্যে উত্তেজনা বাড়ার মধ্যে গতমাসে সিউলের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপের হুমকি দেয় পিয়ংইয়ং।

এরপর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনী নিজেদের ভূখণ্ডে কায়েসং সীমান্ত শহরে অবস্থিত দুই কোরিয়ার যৌথ লিয়াজোঁ দপ্তর বিস্ফোরক দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়। দপ্তরটি গুঁড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন নেতা কিম-জং-উনের বোন কিম ইয়ো জং।